ইচ্ছে থাকলে কি না হয়, ছিলেন চেন স্মোকার, সিগারেট ছেড়ে দিয়ে টাকা জমিয়ে বাড়ি বানালেন একতলা - Nadia24x7

Breaking

Home Top Ad

Post Top Ad

Wednesday, August 5, 2020

ইচ্ছে থাকলে কি না হয়, ছিলেন চেন স্মোকার, সিগারেট ছেড়ে দিয়ে টাকা জমিয়ে বাড়ি বানালেন একতলা


ধোঁয়াতে টাকা উড়িয়ে দেওয়া, নেশার পিছনে হাজার হাজার টাকা ব্যয় করে দিতে বিন্দুমাত্র ভাবেন না অনেক নেশাখোর। ফলস্বরূপ অর্থের অপচয় সঙ্গে সঙ্গে শারীরিক ক্ষতিগ্রস্থের সম্মুখীন হতে হয় তাদের। এমনই একটি গল্প ৭৫ বছর বয়সী বেনুগোপাল নায়ারের। নির্দ্বিধায় তিনি তাকে উড়িয়ে যেতে নেশার পিছনে।বহুদিন এমনভাবে চলতে থাকায় হঠাৎ একদিন শরীর তার সাথে হাত মেলাতে অস্বীকার করল, তিনি গেলেন ডাক্তারের কাছে।ডাক্তারের কাছে তার শারীরিক অবস্থার অবনতির কথা শুনে ইতি টানলেন প্রিয় নেশা সিগারেটের সাথে। তারপর থেকে ভুলবশত হলেও একটি টান ও দেননি সিগারেটে। এতদিন চেইন স্মোকার ছেড়ে দিলেন তার প্রিয় নেশা।

 

সিগারেট ছেড়ে দিয়েছেন প্রায় ১০০ মাস হয়ে গেছে,যে অর্থ তার নেশার পেছনে খরচ হতো, তা তিনি আস্তে আস্তে জমাতে শুরু করলেন। সেই অর্থ জমা তে গিয়ে তিনি দেখলেন যে কি বিপুল অর্থ তিনি নেশার পেছনে খরচ করতেন। সঞ্চিত অর্থ দিয়ে তিনি তার একটি একতলা বাড়ি ও বানিয়ে ফেলেছেন।বেনুগোপাল একটি নির্মাণ শিল্পে চাকরি করতেন। নেশা ছাড়ার পর থেকেই সঞ্চিত অর্থ তার পরিবারের জন্য জমাতে শুরু করেছিলেন। তিনি ১০০ মাসে জমিয়ে ফেলেছেন প্রায় ৫ লক্ষ টাকা।
এই সঞ্চিত অর্থ দিয়ে তিনি তার একতলা বাড়িটি নির্মাণ করেছেন।

 

যুবক বয়সে অর্থাৎ প্রায় ১৩ বছর বয়স থেকে তিনি ধুমপান শুরু করেছিলেন। এরপর তারা ৬৭ বছর পর্যন্ত তিনি ধুমপান করে গেছেন একনাগাড়ে, খাওয়াবা তিনি ছিলেন চেইনস্মোকার। কিন্তু সাতষট্টি বছর বয়সে এসে অবশেষে তার ধূমপানে পরলো বাধা। হঠাৎ একদিন বুকে ব্যথা অনুভব করলেন। ডাক্তারের কাছে যেতেই তিনি জবাব দিয়েছেন, একটি টান দিলেই সব শেষ। রীতিমত ভয় পেয়ে সাধের সিগারেট ছাড়তে বাধ্য হলেন বেনুগোপাল বাবু।

 

বেনুগোপাল দিনে প্রায় কুড়িটি করে সিগারেট খেতেন অর্থাৎ প্রায় দুই প্যাকেট। আজকে তিনি যা অর্থ উপার্জন করতে পেরেছেন, তাতে তিনি একটি কথা বারবার বলেছেন, “জীবনে যদি এর আগে সিগারেট ছাড়তে পারতাম, তাহলে আরো অনেক অর্থ উপার্জন করতে পারতাম। পুরনো জীবন আর ফিরে আসে না এই একটাই আফসোস থেকে যাবে। তবে এখন সিগারেট ছেড়ে বেশ ভাল আছি”। বেনুগোপালের এই কাহিনী প্রত্যেক ধূমপানকারীদের জন্য একটি প্রকৃত শিক্ষা।

Post Bottom Ad