করোনা সচেতনতা নিয়ে গান বানিয়ে নিজেই করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেলেন - Nadia24x7

Breaking

Home Top Ad

Post Top Ad

Monday, June 1, 2020

করোনা সচেতনতা নিয়ে গান বানিয়ে নিজেই করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেলেন


ট্রিম করা দাঁড়ি, লাজুক চাহনি, ঠোঁটে লেগে থাকা মিষ্টি হাসি। এমনটাই ছিলেন সাজিদ-ওয়াজিদ সংগীত পরিচালক জুটির, ওয়াজিদ খান। মাত্র ৪২ বছর বয়সে চলে গেলেন তিনি। কিডনির সমস্যায় ভুগছিলেন ওয়াজিদ। করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেলেন তিনি। রেখে গেলেন তাঁর সৃষ্টি করা বেশ কিছু হিট গান।

 

লোকডাউন চলছে জোর কদমে। এমন সময় বলিউডের ভাইজান ঠিক করেন, করোনার বিষয়ে সতর্কতা ছড়াবেন। তাও এটারটেনমেন্ট কোশান্ট বজায় রেখে। প্রিয় সংগীত পরিচালক জুটি, সাজিদ-ওয়াজিদের কাঁধে দেন এই গুরু দায়িত্ব। তৈরি হয় গান, ‘প্যায়ার করোনা’। তখন কেউ ভাবতেও পারেননি এই মরন রোগই কেড়ে নেবে ওয়াজিদ খানের প্রাণ। সোমবার ভোর রাতে মুম্বাইয়ের সুরানা হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করলেন তিনি। তাঁর মৃত্যুতে শোকের ছায়া বলিউডে।

 

বেশ কিছুদিন ধরে কিডনি জনিত সমস্যায় ভুগছিলেন ওয়াজিদ। কিডনি প্রতিস্থাপনও করা হয়েছে। হৃদরোগ জনিত সমস্যাও ছিল তাঁর। দিন কয়েক আগে তাঁর কিডনিতে সংক্রমণ হয়। অসুস্থ ছিলেন তিনি। তখনই ছোবল বসায় করোনা। শেষ চার দিন ভেন্টিলেটরে ছিলেন ওয়াজিদ। এত গুলো অসুস্থতা থাকায় তাঁর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা ক্ষীণ হয়ে এসেছিল। তাই শেষ রক্ষা হলো না। মাত্র ৪২ বছর বয়সে চলে যেতে হলো ওয়াজিদ খানকে।

 

কেরিয়ারের গোড়া থেকেই তিনি ছিলেন বলিউডের ভাইজানের প্রিয়পাত্র। ‘প্যায়ার কিয়া তো ডরনা কয়্যা’ ছবি দিয়ে বলিউডে পা রাখেন ওয়াজিদ। সাজিদ-ওয়াজিদের হিট গানের সংখ্যা কম কিছু নয়। ‘গর্ব’, ‘তেরে নাম’, ‘তুমকো না ভুল পায়েঙ্গে’, ‘পার্টনার’ ও ‘দাবং’ ফ্যাঞ্চাইসের অংশ ওয়াজিদ খান। সম্প্রতি সলমনের ঈদের গানটিরও সুর তাঁর করা।

 

সংগীত পরিচালনার পাশাপাশি প্লেব্যাকও করেছেন ওয়াজিদ। অক্ষয় কুমারের লিপে ‘রাউডি রাঠোর’ ছবিতে তাঁর গাওয়া গানটি চার্টবাস্টার। ‘দাবং’-এর ফেবিকল সে গানটিও তাঁর গাওয়া। মিউজিক রিয়্যালিটি শো-এর বিচারক হিসেবে কাজ করেছেন ওয়াজিদ।

তাঁর অকাল প্রয়াণে শোকগ্রস্ত বলিউড। ট্যুইট করেছেন অমিতাভ বচ্চন, প্রিয়াঙ্কা চোপড়া, বরুণ ধওয়ান ও আরও অনেকে।

Post Bottom Ad