Friday, April 10, 2020

করোনা মোকাবিলায় ৫ হাজার দুস্থকে খাওয়ানোর দায়িত্ব নিলেন শচীন

Sachin Tendulkar

তিনি শুধু ক্রিকেটেরই ঈশ্বর নন, সংকটের সময় গরিবদেরমাসিহা বটে। করোনা মোকাবিলায় কেন্দ্র রাজ্যকে আগেই আর্থিক সাহায্য করেছেন। দেশের এমন কঠিন পরিস্থিতিতে ফের ব্যাট ধরলেন শচীন তেণ্ডুলকর। এবার হাজার দুস্থকে খাওয়ানোর দায়িত্ব নিলেন মাস্টার ব্লাস্টার।

করোনাকে ঠেকাতে একজোট হয়ে লড়ছে গোটা দেশ। সাধ্যমতো সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিচ্ছেন অনেকেই। ব্যতিক্রমী নন শচীনও। মহারাষ্ট্র সরকার এবং কেন্দ্রর ত্রাণ তহবিলে ২৫ লক্ষ করে মোট ৫০ লক্ষ টাকা অনুদান দিয়েছিলেন তিনি। এবার আপনালয় নামের একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার সঙ্গে হাত মিলিয়ে এক মাসের জন্য পাঁচ হাজার মানুষের মুখে অন্ন তুলে দেওয়ার দায়িত্ব কাঁধে নিলেন। এই মহৎ কাজের জন্য টুইটারে ক্রিকেট ঈশ্বরকে ধন্যবাদ জানিয়েছে সংস্থাটি। লেখে, “লকডাউনে যাঁদের সমস্যায় পড়তে হচ্ছে তাঁদের দিকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন শচীন। এমন সংকটের দিনে আপনালয়ের পাশে দাঁড়ানোয় তাঁকে ধন্যবাদ। এক মাসের জন্য পাঁচ হাজার মানুষকে খাওয়াবেন তিনি।উত্তরে লিটল মাস্টার লেখেন, “আপনালয়ের জন্য আমার শুভেচ্ছা রইল। দুস্থদের সেবার এই মহৎ কাজ চালিয়ে যাও তোমরা।

করোনার জেরে দেশজুড়ে ২১ দিনের লকডাউন চলছে। ওড়িশা এবং পাঞ্জাব ইতিমধ্যেই আবার লকডাউনের সময়সীমা বাড়িয়ে দিয়েছে। দেশেও লকডাউন বাড়ার ইঙ্গিত দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। যাতে স্পষ্ট, করোনাকে নির্মূল করতে এখনও অনেকখানি লড়াই বাকি। এর মধ্যে শচীনের রাজ্য মহারাষ্ট্রের পরিস্থিতি সবচেয়ে শোচনীয়। সেখানে আক্রান্তের সংখ্যা ১৩০০ ছাড়িয়ে গিয়েছে। বহু করোনা পজিটিভের মৃত্যু হয়েছে। এমন অবস্থায় শচীনের এই মানবিক পদক্ষেপ প্রশংসা কুড়োচ্ছে নেটদুনিয়ার।

শচীন তেণ্ডুলকরের মতোই করোনা মোকাবিলায় এগিয়ে এসেছেন বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। আর্থিক সাহায্যের পাশাপাশি দুস্থ পরিবারের কাছে চালও পৌঁছে দিয়েছেন তিনি। শুধু তাই নয়, লকডাউনের সময় কলকাতার ইসকনে রোজ দশ হাজার লোকের খাওয়ার বন্দোবস্তও করেছেন সৌরভ। গরিব পরিবারের মুখে অন্ন তুলে দিয়েছেন হরভজন সিংও। বিরাট কোহলি, যুবরীজ সিং, সুনীল গাভাসকররা আবার আর্থিকভাবে প্রশাসনের পাশে দাঁড়িয়েছেন।

SHARE THIS

Author:

Etiam at libero iaculis, mollis justo non, blandit augue. Vestibulum sit amet sodales est, a lacinia ex. Suspendisse vel enim sagittis, volutpat sem eget, condimentum sem.